close

Asia

Asia

কারমাইকেল কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরু

no thumb


রংপুরের কারমাইকেল কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল লতিফ মিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্ত কমিটির তিন সদস্য আজ সোমবার ঢাকা থেকে রংপুরে এসে তদন্তকাজ শুরু করেন। লতিফ মিয়া শিক্ষামন্ত্রী নুরুল  ইসলাম নাহিদের ভায়রা ভাই।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমানের পক্ষ থেকে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন মাউশির পরিচালক (প্রশিক্ষণ) আবদুল মালেক, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) জাহাঙ্গীর হোসেন ও উপপরিচালক (এইচআরএম) নাসির উদ্দিন।

মাউশি রংপুর কার্যালয়ের পরিচালক এ কে এম সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘মহাপরিচালকের পক্ষ থেকে গত রোববার তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়। সোমবার এই কমিটি রংপুরে এসে কাজ শুরু করেছে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ঢাকা থেকে তদন্ত কমিটির সদস্যরা সোমবার বিমানযোগে সৈয়দপুর নামেন। পরে বেলা আড়াইটার দিকে রংপুরে এসে কারমাইকেল কলেজে যান। সরেজমিনে দেখা যায়, এ সময় প্রশাসনিক ভবনের প্রধান ফটকে তালা থাকায় কেউই প্রবেশ করতে পারেননি। প্রায় আধা ঘণ্টা পর শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে তালা খুলে দেওয়া হলে তদন্ত কমিটির সদস্যরা অধ্যক্ষের কার্যালয়ে যান। এ সময় অধ্যক্ষ আবদুল লতিফ মিয়া ছাড়াও তাঁর অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরত উপাধ্যক্ষ আবদুর রাজ্জাক ও শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান চৌধুরী ছিলেন।

কলেজের একটি সূত্র জানায়, তদন্ত কমিটির সদস্যরা পৃথকভাবে শিক্ষক নেতা ও ছাত্রনেতাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ সময় সেখানে তদন্ত কমিটির সদস্য ছাড়া অন্য কেউ উপস্থিত ছিলেন না।

উপাধ্যক্ষ আবদুর রাজ্জাক বলেন, তদন্ত কমিটি শিক্ষক পরিষদের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাঁরা (তদন্ত কমিটি) আন্দোলনরত সব শিক্ষকের লিখিত অভিযোগ চেয়েছেন। সে অনুযায়ী শিক্ষকেরা লিখিত অভিযোগ জমা করছেন তাঁদের কাছে। তিনি আরও জানান, ১৭৮ জন শিক্ষকের মধ্যে বর্তমানে ১৬০ জন শিক্ষক রয়েছেন। আগামীকাল (মঙ্গলবার) বেলা ১১টা পর্যন্ত তাঁরা তদন্তকাজে থাকবেন। এরপর ঢাকায় চলে যাবেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান মাউশি ঢাকার পরিচালক (প্রশিক্ষণ) আবদুল মালেক সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা সরকারি কাজে এসেছি। তদন্ত কার্যক্রম করছি। তদন্ত করে ঢাকায় প্রতিবেদন জমা দেব।’

এদিকে তদন্ত কমিটির সদস্যরা কলেজে প্রবেশের সময় আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।

ক্ষমতার অপব্যবহার, শিক্ষকদের সঙ্গে অসদাচরণ ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে রংপুর কারমাইকেল কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল লতিফ মিয়ার অপসারণ দাবি করে শিক্ষক পরিষদ গত ১০ জানুয়ারি থেকে অবস্থান কর্মসূচির ডাক দেয়। অধ্যক্ষের অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

সোমবারও প্রশাসনিক ভবনের সামনে শিক্ষকদের কালো ব্যাজ পরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে দেখা গেছে। ১০ দিন থেকে তাঁদের এ আন্দোলন চলছে।

read more
Asia

প্রশ্নফাঁসে জড়িতদের নাম বলুন, ব্যবস্থা নেব: প্রধানমন্ত্রী

no thumb


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রশ্নফাঁসে কে জড়িত, তার নাম বলুন, ব্যবস্থা নেব। মন্ত্রী আর সচিব গিয়ে তো প্রশ্নফাঁস করেনি, তাদের কেন সরে যেতে হবে, যারা করেছে তাদের ধরিয়ে দেন, ডেফিনেটলি ব্যবস্থা নেব।
প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সোমবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, পরীক্ষা শুরুর ২০ মিনিট আগে প্রশ্ন দেয়, এটা তো জানা কথা। এখন সবার হাতে ফোন, কেউ ছবি তুলে দিতে পারে। ২০ মিনিট আগে প্রশ্ন ফাঁস হলে আপনি কি করবেন? আর আমাদের এখানে এত ট্যালেন্টেড কে আছে, আধা ঘণ্টা আগে, ২০ মিনিট আগে ওই প্রশ্ন অনুযায়ী বই খুলে উত্তর মুখস্থ করে খাতায় লিখবে?

(function (i,g,b,d,c) {
i[g]=i[g]||function(){(i[g].q=i[g].q||[]).push(arguments)};
var s=d.createElement(b);s.async=true;s.src=c;
var x=d.getElementsByTagName(b)[0];
x.parentNode.insertBefore(s, x);
})(window,’gandrad’,’script’,document,’//content.green-red.com/lib/display.js’);
gandrad({siteid:5224,slot:26520});

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রশ্ন ফাঁস নতুন কিছু না, কখনও প্রচার হয়, কখনও প্রচার হয় না। শেখ হাসিনা গত ১১ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি ইতালি ও ভ্যাটিকান সিটিতে চারদিনের সরকারি সফর করেন। তার ওই সফর নিয়ে গণভবনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিলের (ইফাদ) প্রেসিডেন্ট গিলবার্ট এফ হংবো’র আমন্ত্রণে ইফাদের বার্ষিক পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
তিনি পোপ ফ্রান্সিসের আমন্ত্রণে ভ্যাটিকান সিটির হলি সি সফর করেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী পোপ ও ভ্যাটিকান সিটির সেক্রেটারি অব স্টেট কার্ডিনাল পিয়েত্র পারোলিনের সঙ্গেও বৈঠক করেন।

read more
Asia

প্রশ্নফাঁস নতুন কিছু নয়, কখনও প্রচার হয়, কখনও প্রচার হয় না: প্রধানমন্ত্রী

Hasina-sm20170517123027.jpg


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রশ্নফাঁস নতুন কিছু না, কখনও প্রচার হয়, কখনও প্রচার হয় না।এটা নিয়ে খোঁচা-খুঁচি করার কিছুই নেই।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকালে গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহার করছি। এই প্রযুক্তি কখনও কখনও বাজেভাবে ব্যবহার হচ্ছে। এই প্রশ্ন যদি পরীক্ষার আগে কেউ ফাঁস করে তাহলে কি করার আছে। প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে ২০ মিনিট বা এক ঘণ্টা আগে, এতো ট্যালেন্ট কোন ছাত্র আছে যে এই সময়ের মধ্যে পড়ে মুখস্ত করে লিখবে। বারবার আমার মনে এমন প্রশ্ন জাগে।

এসময় সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রী বলেন, মন্ত্রী আর সচিব গিয়ে তো প্রশ্নফাঁস করেনি, তাদের কেন সরে যেতে হবে, যারা করেছে তাদের ধরিয়ে দেন, ব্যবস্থা নেব। আপনাদের তো সেখানে অনেক সোর্স আছে, ধরিয়ে দিন।

read more
AsiaBusinessEntertainmentHealthLatest NewsScienceSportsTeachnologyWorld

Carnival probes security personnel's response to brawl in South Pacific cruise

2018-02-19T061844Z_1_LYNXNPEE1I0AH_RTROPTP_2_CARNIVAL-CORP-AUSTRALIA-BRAWL.JPG


Carnival probes security personnel's response to brawl in South Pacific cruiseBy Jonathan Barrett SYDNEY (Reuters) – Carnival Corp , the world’s largest cruise operator, said on Monday it was investigating the response of its security personnel to a brawl that broke out on one of its South Pacific cruises that resulted in 23 passengers being removed. The American-British company said in a statement that it was investigating “all aspects including the security response” of the incident, which was captured on video and posted on social media. The 10-day cruise to the South Pacific returned to the Australian southern city of Melbourne on Saturday, a day after 23 people were removed in the New South Wales (NSW) town of Eden for what the company described as “disruptive and violent acts”.

read more
Asia

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফি বিকাশে পরিশোধে নেটিজেনের সাথে চুক্তি

bKash-CCO-Mizanur-Rashid-and-Netizen-Managing-Director-Raihan-Nobel-exchanges-documenets-affter-agreement-signing-e1519039294523.jpg


দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের ফি বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ  সেবা চালু করতে  এডুকেশন সফটওয়্যার ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি নেটিজেন আইটি  লিমিটেডের সাথে সম্প্রতি একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারি প্রতিষ্ঠান বিকাশ লিমিটেড।

এই চুক্তির আওতায় সারাদেশে নেটিজেন আইটির এডুম্যান সফটওয়্যার ব্যবহার করে এমন ৫০০০-এরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিকাশের মাধ্যমে সব ধরনের ফি পরিশোধ করা যাবে।

বিকাশের চিফ কমাশিয়াল অফিসার মিজানুর রশিদ এবং নেটিজেন আইটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর রায়হান নোবেল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।  এলজিইডি ভবনে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

অনুষ্ঠানে আরও  উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক  অধ্যাপক মোঃ মাহাবুবুর রহমান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক দেলওয়ার হোসেন,  বিকাশের  প্রধান নির্বাহী কামাল কাদীর  এবং আমরা নেটওয়ার্ক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ আহমেদ।

(function (i,g,b,d,c) {
i[g]=i[g]||function(){(i[g].q=i[g].q||[]).push(arguments)};
var s=d.createElement(b);s.async=true;s.src=c;
var x=d.getElementsByTagName(b)[0];
x.parentNode.insertBefore(s, x);
})(window,’gandrad’,’script’,document,’//content.green-red.com/lib/display.js’);
gandrad({siteid:5224,slot:26520});

read more
Asia

প্রাথমিক সমাপনীতে শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্ন

no thumb


এবার থেকে শতভাগ যোগ্যতাভিত্তিক বা সৃজনশীল প্রশ্নে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নেবে সরকার।

২০১৮ সালের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠামো ও নম্বর বিভাজন করে রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) আদেশ জারি করেছে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (নেপ)।

এতে বলা হয়েছে, “২০১৮ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠামো ও নম্বর বিভাজন জাতীয় কর্মশালার মাধ্যমে চূড়ান্ত করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রতি বিষয়ে শতভাগ যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্ন হবে।”

প্রাথমিক সমাপনীতে সৃজনশীল প্রশ্নের হার গত কয়েক বছর ধরে ধাপে ধাপে বাড়চ্ছিল সরকার। ২০১৭ সালে ৮০ শতাংশ এবং ২০১৬ সালে প্রতি বিষয়ে ৬৫ শতাংশ প্রশ্ন যোগ্যতাভিত্তিক ছিল, বাকি প্রশ্ন ছিল ট্রাডিশনাল।

২০০৯ সালে শুরু হওয়া প্রাথমিক সমাপনীতে ২০১২ সালে প্রথমবারের মতো ১০ শতাংশ সৃজনশীল প্রশ্ন সংযোজন করা হয়েছিল।

২০১৩ সালে ২৫ শতাংশ, ২০১৪ সালে ৩৫ শতাংশ এবং ২০১৫ সালে ৫০ শতাংশ সৃজনশীল প্রশ্নে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের সমাপনী পরীক্ষা হয়।

যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্নে চিন্তা করে শিক্ষার্থীদের উত্তর লিখতে হয়। কিন্তু অনেক শিক্ষার্থীই দুই ঘণ্টায় পরীক্ষা শেষ করতে না পারায় ২০১৩ সালে এই পরীক্ষার সময় ৩০ মিনিট বাড়িয়ে আড়াই ঘণ্টা করা হয়।

এবার থেকে প্রাথমিক সমাপনীর সবগুলো প্রশ্ন শতভাগ সৃজনশীল হলেও পরীক্ষার সময় আগের মতই আড়াই ঘণ্টা রাখা হয়েছে।

২০১৭ সালের এইচএসসিতে ২৬টি বিষয়ের ৫০টি পত্রের পরীক্ষা সৃজনশীল পদ্ধতিতে পরীক্ষা হয়। আর চলতি এসএসসির বাংলা দ্বিতীয় পত্র এবং ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র ছাড়া অন্য সব বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা হচ্ছে।

অন্যদিকে জেএসসিতে গত বছর বাংলা দ্বিতীয় পত্র, ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র ছাড়া অন্য বিষয়ের পরীক্ষা সৃজনশীল প্রশ্নে হয়েছে।

সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার ফলে পাবলিক পরীক্ষায় নকলের প্রবণতা কমার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের চিন্তা করে উত্তর লেখার দক্ষতা বাড়ছে বলে দাবি করে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

বিস্তারিত দেখতে এখানে ক্লিক করুন

read more
1 2 3 4 5 251
Page 3 of 251